বাংলাদেশের ইতিহাস ১৯০৫-১৯৭১ pdf download | bangladesh er itihas pdf

bangladesher itihas 1905-1971 book by Dr. Abu Md. Delowar Hossain pdf download from Pdfporo.

বাংলাদেশের ইতিহাস ১৯০৫-১৯৭১ pdf download

বাংলাদেশের ইতিহাস ১৯০৫-১৯৭১ বই রিভিউ

bangladesher itihas 1905-1971 pdf download

বইঃ বাংলাদেশের ইতিহাস (১৯০৫-১৯৭১) pdf

লেখকঃ ড. আবু মোঃ দেলোয়ার হোসেন বই pdf

প্রকাশনীঃ বিশ্ববিদ্যালয় প্রকাশনী বই pdf

ফরম্যাটঃ পিডিএফ ফাইল

ক্যাটাগরিঃ ইতিহাস বিষয়ক বই pdf

বাংলাদেশের ইতিহাস দেলোয়ার হোসেন pdf download

ব্রিটিশ ভারত ও বাংলার রাজনৈতিক ইতিহাসে বঙ্গভঙ্গ একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা । ১৯০৫ সালে ভারতের তৎকালীন বড় লাট লর্ড জর্জ নাথানিয়েল কার্জন ( লর্ড কার্জন নামে পরিচিত ) বাংলা প্রদেশ ভাগ করেন , যা ইতিহাসে ‘ বঙ্গভঙ্গ ’ নামে পরিচিত । এর মাধ্যমে একই বছর ১৬ অক্টোবর অবিভক্ত বাংলার ঢাকা , রাজশাহী ও চট্টগ্রাম , পার্বত্য চট্টগ্রাম ও মালদা জেলার চিফ কমিশনার শাসিত আসামের সঙ্গে সংযুক্ত করে পূর্ব বাংলা ও আসাম নামে একটি নতুন প্রদেশ গঠন করা হয় । যদিও মাত্র ৬ বছরের মধ্যে ১৯১১ সালের ১২ ডিসেম্বর বঙ্গভঙ্গ রদ করা হয় । ১৯০৫-১৯১১ সাল পর্যন্ত বাংলার ইতিহাস ঘটনাবহুল ।

বাংলাদেশের ইতিহাস বিষয়ক বই pdf download

বঙ্গভঙ্গ ও রদকে কেন্দ্র করে বাংলার প্রধান দুটি ধর্ম সম্প্রদায় হিন্দু ও মুসলমানের এতো দিনের গড়ে ওঠা ঐক্যের বিপরীতে অনৈক্যের সূত্রপাত ঘটে । বাংলার রাজনীতিতে এর ব্যাপক প্রভাব পড়ে । এর ফলে ভারত উপমহাদেশে মুসলিম জাগরণের সূচনা হয় । বঙ্গভঙ্গের তাৎক্ষণিক ফল ১৯০৬ সালে মুসলমানদের প্রতিনিধিত্বকারী পৃথক দল মুসলিম লীগ গঠন । এ দল যে কোনো মূল্যে বঙ্গভঙ্গ বলবৎ রাখার পক্ষে ছিল । অন্যদিকে হিন্দু সম্প্রদায়ের বড় অংশ জাতীয় কংগ্রেসের সহযোগিতায় বঙ্গভঙ্গ বিরোধী স্বদেশী আন্দোলনের মাধ্যমে ব্রিটিশ সরকারের ওপর বঙ্গভঙ্গ রদের জন্য চাপ অব্যাহত রাখে ।

বাংলাদেশের ইতিহাস সম্পর্কিত বই pdf download

এ পরিস্থিতিতে ব্রিটিশ সরকার ১৯০৯ সালে মর্লি – মিন্টো সংস্কার আইনের মাধ্যমে মুসলমানদের পৃথক নির্বাচনের দাবিকে স্বীকৃতি দিয়ে রাজনীতিতে নতুন ধারার সূচনা ঘটায় । দু’বছর পর ১৯১১ সালে বঙ্গভঙ্গ রদ করে হিন্দু নেতৃবৃন্দকে সন্তুষ্ট করে হিন্দু – মুসলমানদের মধ্যে স্থায়ী সংঘাতের সৃষ্টি করে । এরপর সাময়িকভাবে হিন্দু – মুসলিম ঐক্য স্থাপনের চেষ্টা চললেও ১৯৪৭ সালে ভারত বিভক্তি পর্যন্ত দু’সম্প্রদাযের চরম বৈরী সম্পর্ক বিরাজ করে ।

হেনরি কটনও মনে করেন বঙ্গভঙ্গ অনেক দিনের আলোচনা ও পর্যালোচনার ফল । লর্ড কার্জনকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌছুতে বিশেষভাবে সহায়তা করেছিলেন তিন জন ব্রিটিশ আমলা – বাংলার ছোট লাট অ্যান্ড্রু ফ্রেজার , আসামের চিফ কমিশনার ( পরে পূর্ব বাংলার ও আসামের প্রথম ছোট লাট ) ব্যামফিল্ড ফুলার এবং ভারত সরকারের স্বরাষ্ট্র সচিব স্যার হার্বাট রিজলে । ১৮৫৪ সালে বাংলা , বিহার , উড়িষ্যা ও আসাম নিয়ে একজন লেফটেন্যান্ট গভর্নরের অধীনে বাংলা প্রেসিডেন্সি গঠিত হয় ।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাস pdf download

অমলেন্দু ত্রিপাঠীর মতে , পাঞ্জাব ও উত্তর পশ্চিম প্রদেশ বাদ দিয়ে সমস্ত ভারত ছিল বাংলার অন্তর্ভুক্ত । ভারতের দি ফাস্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ রিপোর্টে ( ১৮৫৫-১৮৫৬ ) বাংলা প্রেসিডেন্সির আয়তন দেখানো হয় ২ লক্ষ ৫৩ হাজার বর্গমাইল এবং জনসংখ্যা ৪ কোটি । স্বয়ং লর্ড ডালহৌসী তখন স্বীকার করেন একজন শাসকের পক্ষে এতো বড় একটি প্রদেশ শাসন করা রীতিমত কষ্টকর । বঙ্গভঙ্গের পেছনে নিম্নলিখিত উদ্যোগগুলো ভূমিকা রাখে

১. হেনরি নর্থকোর্টের -১৮৬৭ : ১৮৬৬ সালে উড়িষ্যার দুর্ভিক্ষ মোকাবেলায় সরকারের ব্যর্থতা অনুসন্ধানের জন্য ভারত সচিব স্যার স্ট্যাফোর্ড হেনরি নর্থকোট ১৮৬৭ সালে একটি কমিটি গঠন করেন । এই কমিটি চূড়ান্ত প্রতিবেদনে বাংলা প্রদেশের প্রশাসনিক অসুবিধাকে দুর্ভিক্ষের অন্যতম প্রধান কারণ হিসেবে চিহ্নিত করে বাংলা বিভক্তির সুপারিশ করেন । এরপর ১৮৬৭ সালে বাংলার ছোট লাট উইলিয়াম গ্রে আবারো প্রদেশ বিভক্তির সুপারিশ করেন । তিনি একই সঙ্গে বোম্বাই ও মাদ্রাজের মতো বাংলার দায়িত্বও একজন লেফটেন্যান্ট গভর্নরের হাতে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তাব করেন ।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতি pdf download

২. লরেন্স প্রস্তাব : তখনকার বড় লাট লরেন্স এ প্রস্তাবের বিরোধিতা করে বাংলার কিছু অংশ যেমন , আসাম ও তৎসংলগ্ন জেলাগুলোকে বিচ্ছিন্ন করার বিকল্প প্রস্তাব দেন । সে মুহূর্তে বিহার ও উড়িষ্যাকে বাংলা থেকে আলাদা করার প্রয়োজনীয়তা তিনি উপলদ্ধি করেননি । তা সত্ত্বেও প্রশাসনিক প্রয়োজনে বাংলার আয়তন ছোট করার পরিকল্পনা শাসক মহলের ভাবনায় বিশেষ স্থান পায় ।

৩. ক্যাম্বেল প্রস্তাব : ১৮৭২ সালে ভারতের প্রথম আদমশুমারিতে দেখা যায় যে , বাংলা প্রেসিডেন্সির জনসংখ্যা ৬ কোটি ৭০ লক্ষ । এর পরিপ্রেক্ষিতে ছোট লাট ক্যাম্বেল পুনরায় প্রশাসনিক অসুবিধার কথা উল্লেখ করেন এবং তাঁর সুপারিশের ভিত্তিতে ১৮৭৪ সালে আসামকে বাংলা ভাষী তিনটি জেলা সিলেট , কাছাড় ও গোয়ালপাড়া চিফ কমিশনারের অধীনে এনে বাংলা থেকে পৃথক করা হয় । যদিও বাংলার ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা রোধে এ ব্যবস্থা চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ হয় । তা সত্ত্বেও এ পরিকল্পনাকে বঙ্গভঙ্গের প্রথম পদক্ষেপ বলা যায় ।

Download Now bangladesher itihas 1905-1971 pdf book

বাংলাদেশের ইতিহাস ১৯০৫-১৯৭১ pdfDownload Now

3.7/5 - (3 votes)